ভিটামিন বা খাদ্যপ্রাণ কি বা কাকে বলে? ভিটামিনের প্রকারভেদ

ভিটামিন বলতে আমরা খাদ্যের ঐ সব জৈব রাসায়নিক পদার্থকে বুঝি যা খাদ্যে সামন্য পরিমাণে উপস্থিত থাকে। এটি প্রত্যক্ষভাবে দেহ গঠনে অংশগ্রহণ না করলেও এদের অভাবে দেহের ক্ষয়পূরণ বৃদ্ধিসাধন ও তাপ শক্তি উৎপাদন ইত্যাদি বিভিন্ন ক্রিয়াগুলো সুসম্পন্ন হতে পারেনা। ১৯১২ সালে বিজ্ঞানী ক্যাশিমির ফ্রাঙ্ক ভিটামিন আবিষ্কার করেন।

আরও পড়ুন – রক্ত কি? রক্তের প্রকারভেদ ও রক্তের কাজ সম্পর্কে বিস্তারিত

যেসব জৈব খাদ্য উপাদান সাধারণ খাদ্যে অতি অল্প পরিমাণে থেকে দেহের স্বাভাবিক পুষ্টি ও বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে তাকে ভিটামিন বা খাদ্যপ্রাণ বলে। ভিটামিনের অভাবে নানা রকম সমস্যার আবির্ভাব হয়। যেমন- ভিটামিন এ এর অভাবে রাতকানা রোগ হয়, ভিটামিন সি এর অভাবে স্কার্ভি হয় ইত্যাদি।

ভিটামিনের প্রকারভেদ

দ্রবনীয়তার গুণ অনুসারে ভিটামিন কে দুই ভাগে ভাগ করা যায় ।যথা:

  • স্নেহ জাতীয় পদার্থে দ্রবণীয় ভিটামিন। যেমন- এ, ডি, ই এবং কে
  • পানিতে দ্রবণীয় ভিটামিন। যেমন – ভিটামিন বি কমপ্লেক্স এবং সি।

পড়ুন – নিউক্লিয়াস কাকে বলে? নিউক্লিয়াসের গঠন ও কাজ

ভিটামিনের উৎস

গাছের সবুজ পাতার কচি ডগা, হলুদ ও সবুজ বর্ণের সবজি, ফল ইত্যাদি অংশে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন থাকে।


আজ এখানেই শেষ করছি। আমার এই আর্টিকেলটি পড়ে ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না কিন্তু।

About the Author

Israt Jahan

আমি ইসরাত জাহান। পড়াশোনা করছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। লিখতে খুব ভাল লাগে। তাই প্রতিনিয়ত লিখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমার জন্য দোয়া করবেন। ধন্যবাদ।

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *