বিজ্ঞাপন কি? বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য, প্রকারভেদ এবং গুরুত্ব

আপনি যখন টিভিতে বা ইন্টারনেটে কোন ছবি বা ভিডিও দেখেন তখন মাঝে মাঝে কিছু অন্যান্য প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের বিষয়ে তথ্য দেওয়া হয়। এ অবস্থাকে বলা হয় বাণিজ্যিক বিরতি। আর এ বিরতিতে যে কোন একটি বিশেষ প্রোডাক্ট, সার্ভিস, নোটিশ, ইনফর্মেশন ইত্যাদি জনগণের কাছে প্রচার করার উদ্দেশ্যে টিভির মাধ্যমে দেখানো হয়। আর এ প্রক্রিয়াটিকে বলা হয় বিজ্ঞাপন বা অ্যাডভার্টাইজমেন্ট। চলুন তাহলে বিজ্ঞাপণ বিস্তারিত জেনে নেই।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন কি?

যে কোন প্রোডাক্ট বা সার্ভিসগুলোকে বিক্রি বা প্রমোট করার উদ্দেশ্যে প্রচার করার প্রক্রিয়াকেই বিজ্ঞাপন বলা হয়। যেমন-আপনি যখন ইউটিউবে কোন ভিডিও দেখেন তখন নানা ধরণের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস নিয়ে আমাদের অ্যাড দেখানো হয়।

এছাড়া টিভিতে যেকোন সিরিয়াল বা ছবি দেখার সময় আমাদের কাছে বিভিন্ন কনসিউমার প্রোডাক্টস যেমন – ম্যাগি, টুথপেস্ট, অয়েল, কোলড্রিংস বা বিভিন্ন ব্র্যান্ড ইত্যাদি প্রোডাক্ট নিয়ে কিছু ম্যাসেজ প্রচার করা হয় এই সম্পূর্ণ প্রচার করার প্রক্রিয়াটি হল বিজ্ঞাপন।

তাছাড়া বিজ্ঞাপন হলো মার্কেটিংয়ের অনেক গুরুত্বপূর্ণ অংশ। যার উদ্দেশ্য হলো বিভিন্ন পণ্য বা সার্ভিসগুলোকে জনগণের মাঝে প্রচার করে সেগুলো জনগণকে কেনাতে উৎসাহিত করা।

বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য কি?

বিজ্ঞাপন কি এ প্রশ্নের উত্তর থেকেই স্পষ্টভাবে বোঝা যাচ্ছে বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য কি। বিজ্ঞাপনের প্রথম ও গুরুত্বপূর্ণ উদ্দেশ্য হলো লাভ। এটা আর্থিকভাবে হতে পারে আবার জনমত তৈরীর মাধ্যমে সামাজিক বা রাজনৈতিক লাভও হতে পারে।

আরও পড়ুন – স্মার্টফোনে অটো অ্যাড বন্ধ করবেন কিভাবে?

এক কথায় বলা যায়, বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে করা লক্ষ্যবস্তু প্রচারের মাধ্যমে লক্ষ্যসমূহের আকর্ষণ গ্রহণ করা ও জনসাধারণের বিচার ধারণাগুলোকে প্রভাবিত করা, এটাই হলো বিজ্ঞাপনের মূল্য উদ্দেশ্য। এ প্রক্রিয়ায় দুটি পক্ষ রয়েছে। যথাঃ

  • বিজ্ঞপ্তি কর্তা ও
  • লক্ষ্য সমূহ

বিজ্ঞাপনে উদ্দেশ্য হলো এ দুজনের মাঝে সম্পর্ক তৈরি করা। তাদের লক্ষ্যের উপর নির্ভর করে বিজ্ঞাপনের তিনটি উদ্দেশ্য রয়েছে। যেমন-

  • সূচনা প্রদান করা
  • প্রভাবিত করা
  • স্বীকৃতি তৈরি করা

বিজ্ঞাপন হলো মূলত একটি সূচনা যা বিজ্ঞাপনদাতার দ্বারা লক্ষ্যসমূহগুলির কাছে প্রচার করা হয়। আর এ প্রচার করা বিজ্ঞাপনগুলো উপভোক্তাদের বিজ্ঞাপনের সাথে জড়িত প্রোডাক্ট, সার্ভিস বা বিষয়ের উপর নিজের বিচার তৈরি করতে সাহায্য করে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে দেওয়া সূচনা কতটা ভালো ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে তার উপর নির্ভর করে লক্ষ্যসমূহের বিচারের নির্ধারণ হয়।

বিজ্ঞাপনের প্রকারভেদ

বিজ্ঞাপনের প্রকার বা বিজ্ঞাপন প্রচারের অনেক মাধ্যম রয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটি সম্পর্কে বলা হলো –

  • Online Advertising (Digital Advertising)
  • Cell Phone Advertising (Mobile Advertising)
  • Print Advertising
  • E-mail Advertising
  • Media Advertising

Online Advertising (Digital Advertising): এটি হল ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার। এর বিজ্ঞাপন প্রচারের কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্লাটফর্ম হল – Google Ads, Facebook Ads,LinkedIn,Twitter Ads, Instagram Ads ইত্যাদি।

Cell Phone Advertising (Mobile Advertising): ডিজিটাল Advertising এর ক্ষেত্রে মোবাইল, স্মার্টফোন, আইপ্যাড বা অন্যান্য পোর্টেবল বা অন্যান্য ইলেকট্রনিক ডিভাইগুলোতে ইন্টারনেট কানেক্ট করে বিজ্ঞাপন প্রচার করা সম্ভব।

Print Advertising: ম্যাগাজিন, নিউজ পেপার, ভাউচার, পেপার ব্যানার, লিফলেট, এছাড়া অন্যান্য জিনিস Printing প্রিন্টিং এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করাকেই Print Advertising বলে।

E-mail Advertising: ইন্টারনেট এবং ই-মেইলের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করা কে E-mail Advertising বলে।

Media Advertising: বিভিন্ন মিডিয়ায় (টিভি, রেডিও, ডিভিডি ইত্যাদি) মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করা কে Media Advertising বলা হয়।

এছাড়াও বিজ্ঞাপনের আরো অন্যান্য অনেক মাধ্যমে প্রকারভেদ হয়েছে ।

পড়ুন – শাওমি ফোনে অপ্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপন বন্ধ করব কীভাবে?

বিজ্ঞাপন প্রচারের লাভ ও সুবিধা

বিজ্ঞাপন প্রচারের প্রচুর লাভ ও সুবিধা রয়েছে। নিচে কয়েকটি দেওয়া হলো –

  • মার্কেটের নতুন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস আনার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  • প্রোডাক্ট বিক্রি, চাহিদা ও জনপ্রিয়তার পরিমাণ বৃদ্ধি করতে কাজে লাগে।
  • বর্তমানে বাজারে প্রতিযোগিতা অধিক বেশি। তাই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রোডাক্ট ও সার্ভিস সবসময় গ্রাহকদের ধ্যানে ও মনে রাখা সম্ভব।
  • বিভিন্ন ব্যবসার ব্র্যান্ড তৈরি করার ক্ষেত্রে কাজে আসে।
  • এর মাধ্যমে যেকোন উৎপাদন সহজেই লোকদের নজরে আনা সম্ভব।
  • এছাড়া বিজ্ঞাপন সংস্থা ও সংগঠন গুলোর মাধ্যমে চাকরির সুযোগ বাড়ছে।
  • ব্লগার ও ইউটিউব চ্যানেলের মালিকরা অনেক সহজেই তাদের ওয়েবসাইট বা চ্যানেল অনলাইনে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রচার করে নিতে পারছে ইত্যাদি। এছাড়াও আরও অনেক অনেক সুবিধা রয়েছে।

তাহলে আজ এখানেই শেষ করছি। আশা করি, বিজ্ঞাপন সম্পর্কে অল্প কিছু হলেও ধারনা দিতে পেরেছি। আর আমার এ পোস্টটি পড়ে ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধু-বান্ধব ও ও আত্মীয়-স্বজনদের সাথে শেয়ার করবেন। আর এ সম্পর্কে কোনো কিছু জানার থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আমরা যথাসাধ্য উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব।

About the Author

Israt Jahan

আমি ইসরাত জাহান। পড়াশোনা করছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। লিখতে খুব ভাল লাগে। তাই প্রতিনিয়ত লিখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমার জন্য দোয়া করবেন। ধন্যবাদ।

2 Comments

2 thoughts on “বিজ্ঞাপন কি? বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য, প্রকারভেদ এবং গুরুত্ব”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *