ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়?

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্লাটফর্ম হচ্ছে ফেসবুক। এতে প্রতি মাসে ২.৪ বিলিয়নের বেশি এক্টিব ব্যবহারকারী থাকে। এছাড়া প্রতিদিন গড়এ ১.৪৯ বিলিয়ন লোক ফেসবুক ব্যবহার করে। আপনি শুনলে অবাক হবেন যে প্রতি সেকেন্ডে ঘরে 5 টি নতুন ফেসবুক একাউন্ট তৈরী হয়ে থাকে। বর্তমানে এর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফেসবুককে শুধুমাত্র সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ভাবলেও এ কে কাজে লাগিয়ে বর্তমানে অনলাইনে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে । ফেসবুকের জনপ্রিয়তা থাকলে বিভিন্ন উপায়ে ইনকাম করা যায়। তাই আজ আমি ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় সে নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে আর দেরি না করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার উপায় সম্পর্কে জেনে নেই-

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়?

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার অনেক উপায় রয়েছে। আপনি ইচ্ছা করলে আপনার হাতে থাকা ফোন বা ল্যাপটপের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে পারবেন। ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার কয়েকটি মাধ্যম হলো –

  1. ফেসবুক ভিডিও দেখে আয়
  2. ফেসবুকে প্রোডাক্ট সেল করে আয়
  3. শার্ট লিংক শেয়ার করে আয়
  4. এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়
  5. ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়
  6. পেইজ বিক্রি করে আয়
  7. ব্লগ বা ওয়েবসাইট প্রচার করে আয়
  8. ফেসবুক লাইক বিক্রি করে আয়
  9. একাউন্ট পরিচালনা করে আয়
  10. ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে আয়
  11. বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয় ইত্যাদি।

চলুন তাহলে এবার এগুলো বিস্তারিত জেনে নেই।

ফেসবুক ভিডিও দেখে আয়

ফেসবুক ভিডিও এবং লাইভ এর মাধ্যমে ইনকাম করা যায়। টাকা আয় করার উপায় কে বলা হয় ফেসবুক অ্যাডস ব্রেক। বুঝলেন না তো? এর মানে হলো আপনার ভিডিওতে ফেসবুক এড দেখাবে সেই অ্যাড থেকে আয় এর কিছু অংশ আপনাকে দিবে। এই সুবিধাটি পেতে আপনাকে কিছু শর্ত মানতে হবে। প্রথমত আপনার পেইজটি তাদের কাছে গ্রহন যোগ্যতা হতে হবে। এতে কিছু শর্ত রয়েছে। এগুলো হলো-

  1. আপনার পেইজে ১০,০০০ ফলোয়ার থাকতে হবে
  2. সর্বশেষ ৬০ দিনে ১৫,০০০ মানুষের নিকট আপনার যে কোন পোস্ট বা ভিডিও পৌঁছাতে হবে।
  3. লাস্ট ৬০ দিনে আপনার পেজের ভিডিওতে কমপক্ষে ৩০,০০০ এত টিভির থাকতে হবে এবং প্রতিটি গৃহ কমপক্ষে এক মিনিটের হতে হবে। এছাড়া আপনার ভিডিওটি কমপক্ষে তিন মিনিট লম্বা হতে হবে কারণ এর চেয়ে ছোট ভিডিওতে ফেসবুক বিজ্ঞাপন দেখায় না।
  4. বয়স কমপক্ষে ১৮ হতে হবে
  5. ফেসবুকের পলিসি মেনে ভিডিও বানাতে হবে ইত্যাদি।

তাছাড়া লাইভ ভিডিও করেও আপনি টাকা ইনকাম করতে পারেন। এর জন্য শর্ত হল –

  • ভিডিওটি কমপক্ষে 4 মিনিটের বেশি হতে হবে
  • নিচে ৩০০ জন ভিডিও দেখতে হবে

পড়ুন – ফেসবুক ভিডিও ডাউনলোড করব কীভাবে?

ফেসবুকে প্রোডাক্ট সেল করে আয়

আমাদের মাঝে অনেকেই আছে যারা ই-কমার্স ব্যবসার প্রতি অনেক আগ্রহী। ওয়েবসাইট তৈরি বা এর প্রচারের খরচের ভয়ে অনেকে কাজ শুরু করতে পারছে না। আর এ কাজটি ফেসবুক খুব সহজ করে দিয়েছে। আপনার ব্যবসা থাকলে খুব সহজেই সে প্রোডাক্ট গুলোর ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে তারা ক্রেতাদের হাতে পৌঁছতে পারবেন।

আপনার পেইজ বা গ্রুপে বেশি ফলোয়ার থাকলে লোকজন আপনার প্রোডাক্টগুলো দেখতে পাবে এবং অনেকেই সাথে কিনতে আগ্রহ দেখাবে। সততার সাথে আপনি যদি প্রোডাক্টগুলো ডেলিভারি দেন তাহলে আপনার প্রশংসা শুনে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আপনার প্রোডাক্ট কেনার জন্য অনেকেই যোগাযোগ করবে। আর এভাবেই আপনি খুব সহজে ঘরে বসে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন।

পড়ুন – শিক্ষামূলক ফেসবুক স্ট্যাটাস

শর্ট লিংক শেয়ার করে আয়

বিভিন্ন লিঙ্কে ক্লিক করে আমরা যে কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারি। আপনি অবাক হবেন যে, এই লিংকে ক্লিক করানোর মাধ্যমেও ইনকাম করা সম্ভব। এতে আপনার কাজ হল শর্ট লিংকে টাকা প্রদানকরি ওয়েবসাইটে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা। বর্তমানে এরকম কিছু জনপ্রিয় সাইট হল-

মনে করেন আপনি একটি ভিডিও ডাউনলোড লিংক শেয়ার করতে চাচ্ছেন। এখন সেটাকে সোশ্যাল সাইট থেকে শেয়ার করে ফেসবুকে প্রচার করলেন। কেউ যদি আপনার দেওয়া এই লিংকে ক্লিক করে তাহলে আপনার একাউন্টে টাকা জমা হয়ে যাবে।

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়

এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো অন্যের প্রোডাক্ট প্রচার করে তা দ্বারা যদি কোন প্রোডাক্ট সেল হয় তবে তার একটি অংশ আপনি কমিশন হিসেবে পাবেন। এ কাজটি ফেসবুক পেইজ বা গ্রুপের মাধ্যমে করা যায়।

Amazone, eBay, Daraz, BD Shop  ইত্যাদির মতো আরও অনেক অনলাইন মার্কেট প্লেস থেকে মানুষ প্রোডাক্ট ক্রয় করে। আপনি চায়লে এসব মার্কেটপ্লেসগুলোতে একাউন্ট খুলে ফেসবুকের মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারবেন।

পড়ুন- অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী? অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

আপনি যদি এসব মার্কেটপ্লেস অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান তাহলে এখানে অ্যাকাউন্ট খুলে নিবেন। তারপর তাদের প্রোডাক্ট গুলো হতে আপনার ইচ্ছামত বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর রেফারেল লিংক তৈরি করে সেগুলো ফেসবুক পেইজ বা গ্রুপে শেয়ার করবেন। আপনার লিংকে ক্লিক করে কেউ যদি কোন প্রোডাক্ট কয় করে তখন সে প্রোডাক্টের দাম হতে কমিশন হিসেবে আপনাকে কিছু দেওয়া হবে। তাই আপনি যত বেশি প্রোডাক্ট সেল করতে পারবেন আপনার তত বেশি ইনকাম হবে। প্রধানত ফেসবুকে যাদের প্রচুর ফলোয়ার আছে তারা এ কাজটি করতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়

আপনারা যারা ডিজিটাল মার্কেটিং করেন তাদের জন্য ফেসবুকের বিকল্প খুব কমই ওয়েবসাইট রয়েছে। এর মাধ্যমে খুব সহজেই মানুষকে প্রভাবিত করা যায়। এর মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনেক ইনকাম করা যায়। এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচের আর্টিকেলটি পড়ুন।

পড়ুন- ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রকারভেদ

পেইজ বিক্রি করে আয়

মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে ফেসবুক পেইজ এর গুরুত্ব অনেক। আপনার কাছে উন্নতমানের ফেসবুক পেইজ থাকলে সেটি আপনি বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটিং কোম্পানির নিকট বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন। আপনি শুনলে অবাক হবেন যে এক লক্ষ লাইক থাকা একটি ফেসবুক পেইজ এক লক্ষ টাকার চেয়েও বেশি দামে বিক্রি করা যায়। এ নিয়ে যদি আপনার ধারণ থাকে তবে আপনি অল্পদিনের মাঝেই ভালো একটি পেজ তৈরি করতে পারবেন এবং সেটি বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

ব্লগ বা ওয়েবসাইট প্রচার করে আয়

আপনার যদি কোন ব্লগ বা ওয়েব সাইটে থাকে এবং আপনি সেখান থেকে ইনকাম করে থাকেন বাই ইনকাম করতে চান তাহলে ফেসবুকের মাধ্যমে সেটি কয়েকগুণ বৃদ্ধি করতে সক্ষম। কারণ ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যদি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে প্রচার করেন তাহলে অনেক ভিজিটর পাবেন। আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের কনটেন্টগুলো ফেসবুক পেইজ বা গ্রুপে শেয়ার করতে পারেন। অনেকেই আগ্রহী হয়ে এসব লিংকে ক্লিক করে দেখবে। এতে ভিজিটর ও ইনকাম বৃদ্ধি পাবে।

ফেসবুক লাইক বিক্রি করে আয়

ফেসবুক লাইক বিক্রি করা বিতর্কিত বিষয় হলেও অনেকে ফেসবুকে লাইক এনে দিলে টাকা দিয়ে থাকে। ফাইবারে এরকম অনেক জব দেখা যায়।

আপনার যদি একটি প্রচুর জনপ্রিয় ফেসবুক পেইজ থাকে এবং প্রচুর ফলোয়ার থাকে তখন বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটার তাদের পেইজে লাইক বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য কিংবা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে পোস্ট শেয়ার করে অন্যের নিকট পৌঁছে দেয়ার জন্য অফার করবে। আপনি তখন তাদের নিকট থেকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে এসব কাজ করে দিতে পারবেন। অনেক সময় দেখা যায় বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটারগন ১০০০ লাইক এর বিনিময়ে ৫০০/৭০০ টাকা নিয়ে থাকেন। এভাবে আপনি প্রচুর ইনকাম করতে পারবেন।

একাউন্ট পরিচালনা করে আয়

অনেক সময় দেখা যায় বিখ্যাত ব্যক্তি বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফেসবুক পেইজ বা অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করলে অর্থ প্রদান করে। এই কাজগুলো আপনি ঘরে বসে করেও ইনকাম করতে পারেন।

ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে আয়

ফেসবুক গ্রুপ থেকেও অনেক ইনকাম করা যায় তবে এতে কিছু শর্ত রয়েছে। বর্তমানে দেখা যায় অনেক বড় বড় গ্রুপের এডমিন ফেসবুক গ্রুপ থেকে ইনকাম করছে। এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচের আর্টিকেলটি পড়ুন-

ফেসবুক গ্রুপ থেকে আয় করুন সহজ ৫ উপায়ে!

বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয়

বর্তমানে ফেসবুক বিজ্ঞাপন বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আপনি ইচ্ছে করলে ফেসবুকের বিভিন্ন জিনিসের বিজ্ঞাপন দিয়ে আপনার প্রোডাক্ট বিক্রি করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি অল্প টাকা খরচ করে আপনার প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন নাহলে ফেসবুকে দিয়ে বিক্রি করে ইনকাম করতে পারেন।

এগুলো ছাড়াও ফেসবুকের মাধ্যমে আরো বিভিন্ন উপায় এ আয় করা যায়।


তো বন্ধুরা আজ এখানেই শেষ করছি। আমাদের আর্টিকেলটি পড়ে ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধু-বান্ধব ও পরিবার -পরিজনদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আরে এ নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

About the Author

Israt Jahan

আমি ইসরাত জাহান। পড়াশোনা করছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। লিখতে খুব ভাল লাগে। তাই প্রতিনিয়ত লিখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমার জন্য দোয়া করবেন। ধন্যবাদ।

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *