পদ কি বা কাকে বলে? পদ কত প্রকার ও কি কি?

বাক্যে ব্যবহৃত বিভক্তযুক্ত শব্দ ও ধাতুকে পদ বলে। এক কথায় বলা যায়, বাক্যে ব্যবহৃত প্রত্যকটি শব্দই একেকটি পদ। যেমন – মানুষ, তাঁরা, জন্য, আকাশ ইত্যাদি।

পদের প্রকারভেদ / শ্রেণীবিভাগ

পদ প্রধানত ২ প্রকার। যথাঃ-

  • সব্যয় পদ
  • অব্যয় পদ

পড়ুন – বাক্যে পদ সংস্থাপনার ক্রম বা পদক্রম কি ? এবং এর নিয়মাবলি

সব্যয় পদ আবার ৪ প্রকার। এগুলো হলো –

  • বিশেষ্য
  • বিশেষণ
  • সর্বনাম
  • ক্রিয়া

বিশেষ্য

বাক্যমধ্যে ব্যবহৃত যে সমস্ত পদ দ্বারা কোন ব্যাক্তি, বস্তু,স্থান, জাতি,কাল,ভাব ইত্যাদি নাম বোঝানো হয়, তাদের বিশেষ্য পদ বলে। ইফাদ, ঢাকা, নদী,গীতাঞ্জলি, চাল ইত্যাদি।

পড়ুন – বাগধারা কি? ব্যাংক, ভর্তি পরীক্ষা ও বিসিএসে আসার মতো গুরুত্বপূর্ণ কিছু বাগধারা

বিশেষণ

যে পদ দ্বারা বিশেষ্য, সর্বনাম ও ক্রিয়াপদের দোষ, গুণ,অবস্থা, সংখ্যা,পরিমাণ ইত্যাদি প্রকাশ করে, তাকে বিশেষণ পদ বলে। যেমন – নীল আকাশ।, দক্ষ কারিগর।,বেলে মাটি।

সর্বনাম

বিশেষ্যের পরিবর্তে যে শব্দ ব্যবহৃত হয় তাকে সর্বনাম পদ বলে। যেমন – আমি, আমরা, ঐ,কেহ,অন্য,পর ইত্যাদি।

পড়ুন – অনুসর্গ কি বা কাকে বলে? অনুসর্গের বৈশিষ্ট্য ও প্রয়োজনীয়তা

অব্যয়

ন ব্যয় = অব্যয়। যার ব্যয় বা পরিবর্তন হয় না, অর্থাৎ, যা অপরিবর্তনীয় শব্দ তাই অব্যয়।

যে পদ সর্বদা অপরিবর্তনীয় থেকে কখনো বাক্যের শোভাবর্ধন করে,কখনো একাধিক পদের, বাক্যাংশের বা বাক্যের সংযোগ বা বিয়োগ সম্বদ্ধ ঘটায়, তাকে অব্যয় পদ বলে। যেমন – আর, আবার, ও, এবং,কিন্তু ইত্যাদি।

আরও পড়ুন – সন্ধি কি বা কাকে বলে? সন্ধি কত প্রকার ও কি কি?

ক্রিয়া

যার দ্বারা কোন কার্য সম্পাদন করা বোঝায়, তাকে ক্রিয়া বলে। যেমন – খাই, যাই,খান ইত্যাদি।


তাহলে আজ এখানেই শেষ করছি। আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

About the Author

Israt Jahan

1 Comment

1 thought on “পদ কি বা কাকে বলে? পদ কত প্রকার ও কি কি?”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *