ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার গুরুত্ব

স্লিম হতে ব্যায়ামের প্রয়োজন হয় কিন্তু ওজন বাড়ানোর জন্যও কি ব্যায়ামের প্রয়োজন? হ্যাঁ, অবশ্যই প্রয়োজন। করণ ওজন ঠিকঠাক রাখা ও বাড়াতে শরীর চর্চার গুরুত্ব অপরিসীম। তাই যার যার সুবিধামতো, নিয়মিত শারীরিক কন্ডিশন অনুযায়ী ব্যায়াম, হাঁটা, সুইমিং ,দড়িলাফ কিংবা অন্যান্য ফ্রি-হ্যান্ড এক্সারসাইজ করে নিতে পারেন। তবে যারা ওজন বাড়াতে চাচ্ছেন তাদের শরীর চর্চার গুরুত্ব সম্পর্কে জেনে নেওয়া উচিত।চলুন তাহলে, ওজন বাড়াতে শরীর চর্চার গুরুত্ব সম্পর্কে জেনে নেই।

ওজন বাড়াতে শরীর চর্চার গুরুত্ব

ওজন বাড়াতে বেশি বেশি খাওয়ার পাশাপাশি ব্যায়াম করা প্রয়োজন। অনেকেই হয়তো ভাবছেন, ওজন বাড়ানোর জন্য আবার কিসের ব্যায়াম। সুস্থ, সবল ও রোগমুক্ত শরীর পেতে এবং সঠিক নিয়ম মেনে ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার কোন বিকল্প নেই। আপনার লক্ষ্য হচ্ছে ওজন বাড়ানোর সাথে সাথে শরীরকে ফিট রাখা। ওজন খুব কম হলে অনেক সময় নানা রকম সমস্যা হতে পারে, তাই বয়স অনুযায়ী ওজন ঠিক রাখা খুবই প্রয়োজন। রোগাক্রান্ত বা শুকনো শরীর হলে খাবারের দিকে যেমন খেয়াল রাখতে হবে তেমনি শরীরচর্চার দিকেউ লক্ষ্য রাখতে হবে। এক্সারসাইজ থেকে কি কি উপকার পাবেন চলুন তাহলে সে সম্পর্কে জেনে নেই।

পেশী সুগঠিত করতে

চর্বি তুলনায় আমাদের শরীরের ওজন অনেক বেশি। একারণে পেশীর ওজন বৃদ্ধিতে ব্যায়াম করা উচিত। এতে করে শরীরের ওজন বৃদ্ধির পাশাপাশি পেশী সুগঠিত হবে, সেইসাথে শরীর থাকবে ফিট।ওজন বাড়াতে শরীরচর্চার ভুমিকা এখানেই, কেননা এটি শরীরের পেশী সুগঠিত করতে সাহায্য করবে।

ক্ষুদা মন্দা কাটিয়ে উঠতে

ব্যায়াম করলে ক্ষুধা বাড়ে। সাধারণ ক্ষুধা মন্দা কাটিয়ে ওঠে আপনি অনেক খেতে পারবেন তাছাড়া খাবারে রুচি আসবে। যাদের ওজন কম তাদের অন্যতম একটি সমস্যা হচ্ছে, অল্প খেলেই পেট ভরে যায় বা বমি আসে, অরুচি লাগে।নিয়মিত শরীরচর্চা করলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন, ক্ষুধাও বাড়বে, যা ওজন বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে।

শারীরিক শক্তি বাড়ানোর জন্য

ওজন কম থাকলে অনেকেই রোগা, পাতলা,হ্যাংলা ইত্যাদি বলে। সবাই ধরে নেয় তার গায়ে কোন শক্তি নেই। তবে ওজন কম থাকলেই যে শক্তি কম থাকবে এটা ঠিক না। কিন্তু অনেকেই নিজের হালকা শরীর নিয়ে নানারকম চিন্তা করে থাকে,শক্তিশালী হতে চায়।

এক্ষেত্রে সঠিক উপায়ে ব্যায়াম করা এর জন্য বেস্ট সলোশন।শরীর ফ্লেক্সিবল রাখতে, বডির স্টামিনা বাড়িয়ে আরও কর্মক্ষম করে তুলতে, শক্তি বাড়াতে নিয়মিত শরীরচর্চা করুন।

মেটাবলিজম ঠিক রাখতে

আপনি যতই হালকা হন না কেন, ব্যায়াম করলে উপকৃত হবেন। কেননা এটি মেটাবলিজম ঠিক রাখতে সাহায্য করবে, হজম প্রক্রিয়া স্বাভাবিক করবে।এতে করে আপনার খাওয়ার রুচি বাড়বে, ঘুম ভালো হবে, একসাথে সামান্য ওজনও বাড়বে।অনেকেই আছে যাদের খাবার ঠিকমতো পরিপাক হয় না, খাবারের প্রতি আগ্রহ কমতে থাকে, ফলে ওজনও কমে যায়। একারণে সুস্বাস্থ্যের জন্য শরীরচর্চার কোন বিকল্প নেই।

শেষ কথা

শরীর কেমন আছে সেটা বুঝার একটা ভালো উপায় হলো উচ্চতা ও ওজনের অনুপাতের হিসাব। প্রতি মাসে এ অনুপাত চেক করবেন। অতিরিক্ত ওজন যেমন স্বাস্থ্যের জন্য বিপদজনক ঠিক তেমনি অতিরিক্ত ওজন কমও আপনার জন্য বিপদজনক। শারীরিক দিক দিয়ে আপনাকে দুর্বল করে দিতে পারে।

একারণে একজন এক্সপার্টের সাথে কনসাল্ট করে, আপনার শরীরের জন্য কোন এক্সারসাইজগুলো উপযুক্ত তা ঠিক করে নিন। তাছাড়া আপনি ঘরে বসেই টুকটাক ব্যায়াম, ইয়োগা করতে পারেন এতে আপনার শরীর ও মন দুটিই ভালো থাকবে।

About the Author

Israt Jahan

আমি ইসরাত জাহান। পড়াশোনা করছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। লিখতে খুব ভাল লাগে। তাই প্রতিনিয়ত লিখার চেষ্টা করে যাছি। আমার জন্য দোয়া করবেন। ধন্যবাদ।

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *