অব্যয়ীভাব সমাস কি বা কাকে বলে? বিভিন্ন অর্থে অব্যয়ীভাব সমাস

যে সমাসের পূর্বপদে একটি অব্যয় এবং পরপদে একটি বিশেষ্য থাকে এবং অর্থের দিক থেকে পূর্বপদ অর্থাৎ অব্যয়ের অর্থই প্রাধান্য পায়, তাকে অব্যয়ীভাব সমাস বলে। অর্থাৎ, পূর্বপদে অব্যয়যোগে নিষ্পন্ন সমাসে যদি অব্যয়ের অর্থই প্রাধান্য থাকে তবে তাকে অব্যয়ীভাব সমাস বলে। এ সমাসে কেবল অব্যয়ের অর্থযোগে ব্যাসবাক্যটি রচিত হয়। যেমন – মরণ পর্যন্ত = আমরণ, দিন দিন = প্রতিদিন ইত্যাদি।

পড়ুন – সমাস কি বা কাকে বলে? সমাস কত প্রকার ও কি কি?

ড. মুহম্মদ এনামুল হকের মতে, “যে সমাসের সমস্যমান পদদ্বয়ের পূর্বপদ অব্যয় হইয়া অর্থের দিক হইতে প্রাধান্য লাভ করে, তাহাকে অব্যয়ীভাব সমাস বলে।”

ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর মতে, “অব্যয় পদ পূর্বে বসিয়া যে সমাস হয় এবং যাহাতে অব্যয়ের অর্থ প্রধানরূপে বুঝায়, তাহাকে অব্যয়ীভাব সমাস বলে।”

পড়ুন – বহুব্রীহি সমাস কি বা কাকে বলে? বহুব্রীহি সমাস কত প্রকার ও কি কি?

বিভিন্ন অর্থে অব্যয়ীভাব সমাস

সামীপ্য (উপ)কণ্ঠের সমীপে= উপকণ্ঠ, কূলের সমীপে= উপকূল, অক্ষির সমীপে = প্রত্যক্ষ, বনের সমীপে = উপবন
বিপসা (অনু, প্রতি)দিন দিন= প্রতিদিন, ক্ষণে ক্ষণে= অনুক্ষণে, ক্ষণ ক্ষণ= অনুক্ষণ
অভাব অর্থে (নিঃ= নির)আমিষের অভাব= নিরামিষ, ভাবনার অভাব= নির্ভাবনা, জলের অভাব= নির্জল, উৎসাহের অভাব= নিরুৎসাহ, ভাতের অভাব = হাভাত
পর্যন্ত (আ)সমুদ্র থেকে হিমাচল পর্যন্ত= আসমুদ্রহিমাচল, পা থেকে মাথা পর্যন্ত= আপাদমস্তক, মরণ পর্যন্ত = আমরণ
সাদৃশ্য (উপ)শহরের সদৃশ= উপশহর, গ্রহের তুল্য= উপগ্রহ, বনের সদৃশ= উপবন
অনতিক্রম্যতা অর্থে (যথা)রীতিকে অতিক্রম না করে= যথারীতি, সাধ্যকে অতিক্রম না করে= যথাসাধ্য। এরূপ- যথাবিধি, যথাযোগ্য,যথাশাস্ত্র
অতিক্রান্ত (উৎ)বেলাকে অতিক্রান্ত= উদ্বেল, শৃঙখলাকে অতিক্রান্ত= উচ্ছৃঙখল
বিরোধ (প্রতি)বিরুদ্ধ বাদ= প্রতিবাদ, বিরুদ্ধ কূল= প্রতিকূল, বিরুদ্ধ রোধ = প্রতিরোধ
পশ্চাৎ (অনু)পশ্চাৎ গমন= অনুগমন, পশ্চাৎ ধাবন= অনুধাবন
ঈষৎ (আ)ঈষৎ নত= আনত, ঈষৎ রক্তিম= আরক্তিম, ঈষৎ লালচে = লালচে
ক্ষুদ্র অর্থে (উপ)গ্রহের তুল্য = উপগ্রহ, নদীর তুল্য = উপনদী, জেলার ক্ষুদ্র = উপজেলা
পূর্ণ বা সমগ্র অর্থে (পরি বা সম)পরিপূর্ণ, সম্পূর্ণ
দূরবর্তী অর্থে (প্র, পর)অক্ষির অগোচরে= পরোক্ষ। এরূপ- প্রপিতামহ
প্রতিনিধি অর্থে (প্রতি)মূর্তির প্রতিনিধি = প্রতিমূর্তি, এরূপ- প্রতিচ্ছায়া, প্রতিচ্ছবি, প্রতিবিম্ব
প্রতিদ্বন্দ্বী অর্থে (প্রতি)প্রতিপক্ষ, প্রত্যুত্তর ইত্যাদি।
সম্পর্ক অর্থে (সম, বিষয়)সম্বল = বলের সম্পর্কে, সম্মান= মানের সম্পর্কে, সমক্ষে= অক্ষের সম্পর্কে
যোগ্যতা অর্থে (অনু)অনুসন্তান= যোগ্য সন্তান, অনুকূল= কুলের যোগ্য, অনুদান= দানের যোগ্য
কারক – বিভক্তি অর্থেভরদুপুর, দিনভর, ভরপেট ইত্যাদি।

পড়ুন – মিশ্র শব্দ কি বা কাকে বলে? কয়েকটি মিশ্র শব্দের উদাহরণ

তাহলে বন্ধুরা আজ এ পর্যন্তই থাকলো। আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন।

About the Author

Israt Jahan

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *